কিভাবে Professional LinkedIn profile তৈরি করতে হয়

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on pinterest
Share on whatsapp

বর্তমানে ডিজিটাল যুগের বেশিরভাগ চাকরির নিয়োগের একটা বড় অংশ সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে হয়ে থাকে । একটা Professional LinkedIn Profile মাধ্যমগুলোর মধ্যে অন্যতম । চলুন জেনে নিন কিভাবে Professional LinkedIn Profile তৈরি করতে হয়

সম্প্রতি এক জরিপে দেখা গেছে এখন বিশ্বে নিয়োগের ৯০ ভাগ হয়ে থাকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোর কল্যাণে । অথচ খুব বেশিদিন হয়তো হয়নি যেখানে চাকরির নিয়োগ আমরা সংবাদপত্রে দেখতে পারতাম ।  LinkedIn একাউন্ট হল বর্তমান যুগে চাকরি বা নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করে নেওয়ার অন্যতম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম । কিন্তু এখানে অ্যাকাউন্ট তৈরি করলেই হবেনা , অ্যাকাউন্ট কে এমন একটা রূপে নিয়ে আসতে  হবে যাতে আমাদের প্রোফাইল দেখে অন্যরা আমাদের সাথে কাজ করতে আগ্রহী হয় ।

এখন প্রশ্ন হল কিভাবে একটা প্রফেশনাল মানের LinkedIn প্রোফাইল তৈরি করা যাবে?  প্রফেশনাল কাজের ক্ষেত্রে LinkedIn প্রোফাইল হল আন্যতম  অনলাইন পরিচতি। তাই ভালো কাজের জন্য একাউন্ট সঠিকভাবে সাজিয়ে তুলতে হবে। যা দেখে বড় বড় কম্পানিগুলোর  কাছে আমাদের উন্নত মনে হবে ।

চলুন দেখে নেয়া যাক কিভাবে Professional LinkedIn profile তৈরি করতে হয়ঃ

LinkedIn

সুন্দর প্রোফাইল ছবি ব্যবহার করতে হবে

অন্যসব সামাজিক যোগাযোগের মত এখানে ইচ্ছামত ছবি ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকবেন । এমন একটি  ছবি ব্যবহার করতে হবে যেখানে নিজের চেহরা যেন একদম ক্লিয়ার বুঝতে পারা যায় । ব্যক্তিত্ত সম্পূর্ণ ছবি ব্যবহার করতে হবে।যেন ভালো ইম্প্রেশন তৈরি করা যায় সেই রকম ছবি দিতে হবে । আপনার ছবিটি যেন নির্ভরযোগ্য ও বিশ্বাসযোগ্য মনে হয় সেদিকে অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে ।

হেডলাইন

এখানে Headline বা শিরোনাম বলতে বুঝায় নিজেকে প্রকাশ করা যেটা ১২০ অক্ষর এর মধ্যে প্রকাশ করতে হবে । যেহেতু এটা একটা প্রফেশনাল প্লাটফর্ম, চাকরিদাতারা অবশ্যই আপনার শিরোনাম দেখেই আপনাকে বিচার  করবে । তো শিরোনামটা একদম প্রফেশনাল ভাবে লিখতে হবে । শিরোনাম দিতে হবে আপনি যেসব কাজে অভিজ্ঞ সেই সব সাজিয়ে । যাতে কাজের নাম লিখে সার্চ দিলে চাকরিদাতা আপনাকে খুজে পায় ।  কিছু শিরনামের উদাহরন দেওয়া হলঃ “Graphics designer, Logo designer, Talent Management Expert, Brand Marketing, PR, Communications Professional”

Summary

Summary বা সারাংশ যেখানে আপনার সম্পর্কে কিছু ইউনিক কথা সাজিয়ে লিখতে হবে । সেই সাথে আপনার কিছু অভিজ্ঞতাও শেয়ার করতে পারেন  । আপনার অভিজ্ঞতাসহ ইনফোগ্রাফিক্স কিংবা ছবি যুক্ত করতে পারলে আরও ভালো হয় যাতে আপনাকে সার্চ করে কেউ খুজে পেলেই চোখ এখানে পরে । তখন তিনি এটি পড়তে শুরু করবেন। তাই  খুব কম সময়ের মধ্যে পাঠককে আকৃষ্ট করার মত কিছু যুক্ত করতে বা লিখতে হবে।এখানে আপনার বিষয় দেখে চাকরিদাতার কাছে উপযোগী মনে হলে তারা আপানার প্রোফাইলের অন্য সেকশনগুলোতে ভিজিট করতে আগ্রহী হবে । এ সেকশনে এমন কিছু দেওয়া যাবেনা যা পাঠকের কাছে বিরক্তিকর লাগবে আ। সে জন্য  এখানে আপনার নিজেকে সৃজনশীল, নির্ভরযোগ্য এবং আত্মবিশ্বাসী করে তুলে ধরতে হবে।

Experience  

বর্তমান সময়ের যেকোনো কাজ পাওয়ার জন্য যেটা সব থেকে বেশি প্রয়োজন সেটা হল অভিজ্ঞতা ।একটা প্রফেশনাল একাউন্ট সাজাতে অভিজ্ঞতার কোনো জুরি নেই । আমরা সাধারণত সিভি যেভাবে লিখি এখানেও সেভাবে একটু সাজিয়ে লিখতে হবে । কোন কাজে আপনি খুব ভালো পারেন সেটাও তুলে ধরতে হবে । আরও ভালো হয় অভিজ্ঞতার কাজের বর্ণনা , অনলাইন সার্টিফিকেট এবং কাজের সময় সীমা তুলে ধরলে সেটা আরও বেশি উপযুক্ত মনে হবে । এস ই ও এর জন্য এখানে এমন কিছু কিওয়ার্ড তুলে ধরতে হবে যাতে সার্চ করলেই আপনার প্রোফাইল সবার উপরে চলে আসে । প্রত্যেকটা  সেকশনে কিওয়ার্ড ব্যাবহার করলে আরও ভালো হয় । আপনি যদি অ্যান্ড্রয়েড ডেভেলপার হন, সেক্ষেত্রে এক্সপার্ট ডেভেলপার, ডেভেলপিংয়ের কোন সেকশনে আপনি মাস্টার, কোনটিতে আপনার দক্ষতা ও কাজ বিশ্বমানের সেগুলো চিন্তা করে তুলে ধরতে হবে ।

প্রোফাইল সম্পূর্ণ করা

আপনি যখন লিঙ্কডইন একাউন্ট প্রোফাইল সাজাতে যাবেন দেখবেন সেখানে ১০০% সাজানোর জন্য বলবে । LinkedIn  কতৃপক্ষের মতে, ১০০% সম্পূর্ণ প্রোফাইল সার্চে উপরের দিকে উঠে আসার সম্ভবনা ৪০% বাড়িয়ে দেয়। তাই  অবশ্যই নিজের প্রোফাইল সম্পূর্ণ করতে হবে। প্রোফাইল অসম্পূর্ণ থাকলে সেটা প্রফেশনাল একাউন্ট হবেনা।

          যেভাবে একটা প্রফেশনাল মানের  LinkedIn প্রোফাইল ১০০% সম্পূর্ণ করবেনঃ

  • প্রোফাইলে নিজের ছবি
  • সঠিকভাবে কাজের তথ্য এবং নিজের ঠিকানা দেওয়া এবং সেগুলো নিয়মিত আপডেট রাখা
  • আগের কাজের অনন্ত দুটি ক্ষেত্র যুক্ত করা
  • নিজের শিক্ষাগত যোগ্যতা সঠিকভাবে তুলে ধরা
  • কমপক্ষে তিনটি কাজের দক্ষতা তুলে ধরা
  • কমপক্ষে ৫০ টির বেশি কানেকশান  

তাছাড়া রয়েছে নেটওয়ার্কিং এবং নিজের সেক্টরের প্রফেশনালদের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তোলার জন্য রয়েছে লিঙ্কডইন গ্রুপ । যেগুলোতে যুক্ত হয়ে নিজের ভ্যালু ও গুরত্ব প্রমাণ করে অবদান রাখতে পারেন গ্রুপের আলোচনায় । এভাবে তৈরি করে নিতে পারেন প্রফেশনাল কাজের জন্য গোছানো ও সম্পূর্ণ লিঙ্কডইন প্রোফাইল । যেটা এনে দিতে পারে দারুণ একটি কাজের সুবর্ণ সুযোগ ।  আরও জানতে আমাদের  IMBD  সাইটে যোগাযোগ করতে পারেন ।


RH Rony

RH Rony

2 Responses

  1. Pingback: Linkedin কি ও তার ব্যবহারের উপকারিতা – IMBD Agency

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Get Our Free Ultimate Guide to your Mail